তিনবার আউট-নটআউটঃ ডেভিড ওয়ার্নার || ওয়ার্নারের মহাকাব্য
তিনবার আউট-নটআউটঃ ডেভিড ওয়ার্নার || ওয়ার্নারের মহাকাব্য

তিনবার আউট-নটআউটঃ ডেভিড ওয়ার্নার || ওয়ার্নারের মহাকাব্য

ডেভিড ওয়ার্নার  আউট-নটআউট  এর ইতিহাস

ভাগ্যদেবী বোধহয় ডেভিড ওয়ার্নার কে খুব বেশী ই পছন্দ করেন। নয়ত একই ঘটনা তার সাথেই বার বার কেন ঘটে।

২০১৪ সালের বর্ডার গাভাস্কার ট্রফির প্রথম টেস্ট। আগের বছর ই প্রিয় বন্ধু ফিল হিউজ কে হারান ওয়ার্নার, এই ম্যাচ এর প্রথম ইনিংস এ ৬৩ রানে পৌছে স্মরন করেন প্রিয় বন্ধু হিউজকে। প্রথম ইনিংস এ খেলেন ১৪৫ রানের ইনিংস, দ্বিতীয় ইনিংস এ দুর্দান্ত খেলতে থাকেন ওয়ার্নার কিন্তু ৬৬ রানের সময় ভরুন অ্যারোন এর বলে স্লগ করতে গিয়ে বোল্ড হন ওয়ার্নার৷ পরবর্তিতে আম্পায়ার নো বল চেক করলে দেখা যায় দাগের বাইরে পা ফেলেছেন ভরুন আর এই যাত্রায় বেচে যান ওয়ার্নার, শেষ পর্যন্ত তিনি ১০২ রানে তার ইনিংস শেষ করেন।

পরবর্তী ঘটনা ২০১৬ সালে, বক্সিং ডে তে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট এ মেলবোর্নের মাঠে মুখোমুখি অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তান। ফর্মে থাকা ওয়ার্নার ৮১ এ রানে থাকা অবস্থায় ওয়াহাব রিয়াজের ১৫০ এর বেশী গতির ইনসুইংগার এ বোল্ড ওয়ার্নার,কিন্তু আম্পায়ার আগেই হাত প্রসারিত করে দিয়েছেন নো বলের ইংগিত। অবশ্য পরে ১৪৪ রানে ওয়াহাব রিয়াজ এর বলে আউট হয়েই ইনিংস শেষ করেন ওয়ার্নার৷

আবারো বক্সিং ডে, আবারো মেলবোর্ন কিন্তু এবার প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড। অভিষিক্ত টম কুরান এর বলে হাফ পুল শট খেলতে গিয়ে মিড অনে ধরা ৯৯ রানে থাকা ওয়ার্নার, মাথা নিচু করে ফিরছেন সাজঘরে একটুর জন্য ছুতে পারলেন না তিন অংকের ফিগার। কিন্তু ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার বলেই হয়ত আম্পায়ার ফ্রন্ট ফুট নো বল চেক করলেন, আর ওয়ার্নার আবারো নো বলে আউট হয়েও সেঞ্চুরি করার সুযোহ পেলেন। তবে বেশীক্ষন স্থায়ী হতে পারেন নি পরের ওভারেই এন্ডারসন এর বলে ১০৩ রান করে আউট হিন ওয়ার্নার।

ব্রিজবেনের গাবা, পাকিস্তানের সাথে দুই ম্যাচ সিরিজ এর প্রথম টেস্ট। অভিষিক্ত নাসিম শাহ এর বলে ৫৬ রানে কট বিহাইন্ড ওয়ার্নার, কিন্তু ১৬ বছর বয়সী নাসিম শাহ এর প্রথম টেস্ট উইকেট উদযাপন টা বেশীক্ষন স্থায়ী হল না, এবারেও যখন আম্পায়ার নো বল চেক করলেন বেচে গেলেন ওয়ার্নার, পরে ১৫৪ রান করে নাসিম শাহ এর বলেই আউট হন ওয়ার্নার।

একই সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ এ ৩৩৫ রানের মহাকাব্যিক ইনিংস খেলে ফেললেন ওয়ার্নার। কিন্তু এই ইনিংস এঅ ভাগ্য দেবীর সহায়তা ছিল বেশ। নাসিম শাহ এর বদলে দলে আসা অভিষিক্ত মোহাম্মদ মুসার বলে ২২৬ রানের সময় গালিতে ক্যাচ দিয়ে বসেন ওয়ার্নার। কিন্তু আম্পায়ার রিচার্ড ইলিংগোর্থ তার ডান প্রসারিত করে জানান দেয় “আপনি থাকছেন স্যার “।

এই এক সিরিজেই ওয়ার্নার তিনবার নো বলে আউট হয়ে বেচে যান। আর একবার তো বল স্ট্যাম্প এ লাগার পর ও বেল তার জায়গা ছাড়ে নি।

 134 total views,  1 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *